সোমবার , ১৬ আগস্ট ২০২১ | ২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
  1. Jobs News
  2. TOP JOBS
  3. অনলাইন টিউটরিয়াল
  4. অপরাধ সংবাদ
  5. ইপিজেড নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি
  6. গার্মেন্টস্ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি
  7. গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ
  8. জাতীয় সংবাদ
  9. পরীক্ষার ফলাফল
  10. বিদেশে চাকুরি
  11. বিভাগীয় সংবাদ
  12. বেসরকারি চাকুরি
  13. ভাইরাল সংবাদ
  14. ভিডিও
  15. শিক্ষক কর্মচারী নিয়োগ

কাবুল দখলের পথে তালেবান বাহিনী; সারা বিশ্ব অবাক তাকিয়ে

প্রতিবেদক
বাংলা সার্কুলার
আগস্ট ১৬, ২০২১ ২:৪৬ পূর্বাহ্ণ
কাবুল দখলের পথে তালেবান বাহিনী

কাবুল দখলে বার্তা; শান্তির বার্তা নিয়ে এসেছে তালেবান

আফগানিস্থানে বেশিরভাগ প্রাদেশিক রাজধানী দখলের পর রাজধানী কাবুলে ঢুকে পড়েছে তালেবান। তবে রাজধানীর শহরটিতে কোন ধরনের সংঘাত চালাচ্ছে না গুষ্ঠির নেতারা। বর্তমান পরিস্থিতিতে যোদ্ধাদের শান্ত থাকতে বলেছেন তারা। তালেবান বলছে তারা কাবুলে শান্তির বার্তা নিয়ে এসেছে। গতকাল রোববার গোষ্ঠীর এক সূত্রের বরাত দিয়ে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা এমন তথ্য জানিয়েছে। কাবুলে এই মুহূর্তে অবস্থান করছেন আল-জাজিরার সাংবাদিক।

সবাইকে শান্ত থাকার আহবান তালেবানের

তালেবানের সূত্রের বরাত দিয়ে তিনি বলেন তালেবান নেতারা সবাইকে শান্ত থাকার জন্য বলেছেন, তারা শান্তির বার্তা নিয়ে এসেছেন। ওই সূত্রের বরাত দিয়ে আরো বলেন কাবুলে তালেবানের সংঘাতে জড়ানো কোন উদ্দেশ্য নেই, শহরের সরকারি ভবনগুলো সুরক্ষিত আছে কেউ শহরটির ত্যাগ করতে চাইলে তাদের সুযোগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া নারীদের নিরাপদ অবস্থান করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। এদিকে তালেবান আন্তর্জাতিক মহলের সঙ্গেও কথা হয়েছে আল-জাজিরার। তিনি অবশ্য যোদ্ধাদের কাবুলে প্রবেশের বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছেন, তিনি বলেছেন শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের আফগান সরকারের সহযোগিতা অপেক্ষা করছেন।

রাজধানী কাবুলে ঢুকে পড়েছে তালেবান

এদিকে কাবুল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে ঢুকে পড়েছেন তালেবান যোদ্ধারা। শহরে প্রবেশ করছেন বাহিনীর যোদ্ধারা। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে আফগান প্রেসিডেন্টের কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে কাবুলে বিচ্ছিন্ন কিছু গোলাগুলি হয়েছে। তবে আক্রমণের ঘটনা ঘটেনি কোন স্থানে। নিরাপত্তাকর্মী ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা তাদের বিদেশী অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে শহরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করছেন। এর আগে স্থানের পূর্বাঞ্চলে গুরুত্বপূর্ণ শহর জালালাবাদের তালেবান গণপ্রতিরোধে শহরটি দখল নিতে সক্ষম হয় তালেবান। জালালাবাদ সহ আফগানিস্তানের মধ্যে অন্তত বিশটি প্রদেশ নিয়ন্ত্রন এখন তালেবানের হাতে।

বিবিসির সাথে আলাপকালে তালেবান মুখপাত্র যা বললেন

কাবুলের পরিস্থিতি দ্রুত বদলাচ্ছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন রাজধানীতে ঢোকার পথে তালেবানকে বড় ধরনের কোনো বাধার মুখে পড়তে হয়নি। তালেবান এক বিবৃতি দিয়ে বলছে তারা কাবুল ঘিরে ফেলেছে। অন্যদিকে আফগান প্রেসিডেন্ট দেশ ত্যাগ করেছেন বলে আফগান কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে খবর দেওয়া হচ্ছে। যদিও সরকারিভাবে এই খবর নিশ্চিত করা হয়নি। দ্রুত সময়ের মধ্যেই আফগানিস্তানের শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তর করা হবে বলে আশা করছে। তালেবানের মুখপাত্র শাহিন বিবিসির সাথে সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন আফগানিস্তানের মানুষের ওপর প্রতিশোধ নেওয়া হবে না। বিবিসির সাথে আলাপকালে তিনি বলেছেন আমরা লোকজনকে বিশেষ করে কাবুলের জনগণকে আশ্বস্ত করতে চাই যে তাদের জীবন ও সম্পদ নিরাপদ থাকবে।

তিনি আরো বলেন আমাদের নেতাদের পক্ষ থেকে বাহিনীকে কাবুল শহরে ঢুকে শহরে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পূর্ণ ক্ষমতা হস্তান্তরের অপেক্ষায় আছে। কাবুলে প্রবেশ করে নেবার পর রোববার রাজধানীর প্রবেশদ্বারগুলো বিমানবন্দর ও হাসপাতালের স্বাভাবিক কাজকর্ম চলবে এবং জরুরি কোনো সরবরাহে বাধা দেয়া হবে না। বিদেশিদের উদ্দেশ্যে বলা হচ্ছে যে তারা চাইলে চলে যেতে পারে তাদের কাছে তাদের উপস্থিতির কথা নিবন্ধন করাতে হবে। যুক্তরাষ্ট্র তাদের দূতাবাস ও কর্মীদের সরিয়ে নেয়ার কাজ জোরদার করেছে ব্রিটিশ নাগরিকদের সরিয়ে নেয়ার কাজ চলছে।

বিবিসির সংবাদদাতা বলছেন শহরের মানুষের মধ্যে নজিরবিহীন উদ্বেগ দেখা যাচ্ছে। বন্ধ হয়ে গেছে কিছু কিছু সরকারি দপ্তর। অনেক সেনা সদস্য এবং পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় তাদের পদ ছেড়ে চলে গেছেন। তালেবানের অগ্রযাত্রা এবং রাজধানীর প্রবেশ দ্বারে তাদের অবস্থান নেবার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে শহরের বাসিন্দারা ছেড়ে পালাতে শুরু করেছে। ব্যাংকগুলোতে প্রচন্ড ভিড় লক্ষ করা গেছে। কারন মানুষ তাদের সঞ্চিত অর্থ তুলে নেবার চেষ্টায় ব্যাংকে ভিড় জমিয়েছে।

বাংলাদেশের সাবেক পররাষ্ট্র সচিব তৌহিদ হোসেন বিবিসিকে এ ব্যাপারে এক বিশ্লেষণে যা বললেনঃ

তাঁকে প্রশ্ন করা হয়-কোন দিকে যাচ্ছে এই মুহূর্তে আফগানিস্তান?

যে পরিস্থিতির উদ্ভব হয়েছে এত তাড়াতাড়ি সমস্ত কিছু হয়ে যাবে তা কারো কাম্য ছিলনা। পুরো বিশ্ব হা করে তাকিয়ে আছে তালেবানের দিকে।আসলে যে পরিস্থিতির উদ্ভবদ হয়েছে, এটা সম্পুর্ণ অপ্রত্যাশিত ছিল যে তা নয়। তবে এত তাড়াতাড়ি  যে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে এটা কেউ ভাবেনি। আশ্রাফঘানি কয়েকদিন আগে বলেছিলেন যে, ৬ মাসের মধ্যেই তালেবানকে নিয়ন্ত্রণ করার তার প্লান অনুযায়ী। তখন অনেকেই বলেছেন যে, ৬মাস তো পরে ৬ সপ্তাহ আছে কিনা সেটা দেখার বিষয়। আসলে ৬ সপ্তাহ কেন ২ সপ্তাহের মধ্যেই সব কিছু শেষ হয়ে যাচ্ছে। আফগান সরকারের যে মিলিটারী মেকানিজম আছে সেটা যেভাবে কলাপস করেছে এটা আসলে আনপ্রেসিডেন্টই বলা যায়।

তিনি আরো বলেন

গত ২০ বছর তো আমেরিকান সেনা এখানে ছিল, এবং তারা এখানে মিলিটারী সকল দিক থেকে ট্রেইনআপ করেছে, রেডি করেছে। পৃথিবীর সবচাইতে অত্যাধুনিক অস্ত্র শস্ত্র দিয়েছে, অর্থ দিয়েছে আফগান সরকরকে। তালেবান যখন এগিয়ে আসে তখন তরা কোন রেসপনস্ করেনি অথবা তারা নিজের জীবন বাঁচাতে সরে গিয়েছে। এটা খুবই একটা অস্বাবিক অবস্থা বিরাজ করেছে। তালেবান অতি তাড়াতাড়িই অনেকগুলো শহর দখল করে শেষ পর্যন্ত কাবুল দখলের পথে রয়েছে। আফগানিস্থানে কখনও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ছিল না। তাদের পূর্ব পুরুষগণ ছিল রাজার অধীন। রাজতন্ত্রই ছিল তাদের শাসন ব্যবস্থা।

তালেবানের উত্থানে আশে পাশের দেশের কি অবস্থা হতে পারেঃ

এটা খুবই সম্ভব এবং আগামী দিনগুলিতে এ ব্যাপারে আমাদের খুবই সাবধান থাকতে হবে। অনস্বিকার্য যে কিছু মানুষ তারা বিরাট উৎসাহ বোধ করবে তালেবানের এ অগ্রযাত্রাকে। একটা বিষয় মনে হয় যে, তালেবানের সাথে চিনাদের সাথে আলাপ আলোচনা আছে। তালেবানের একটা বিষয় তারা বলেছে যে, তারা নিজেদের দেশ ব্যতীত অন্য কোন দেশ নিয়ে তাদের ইসলামী বিপ্লব ঘটানোর চিন্তা ভাবনা নেই।

এ বিশ্লেষক আরো বলেন যে, তালেবানদের উপর পাকিস্থানের বেশ খানিকটা  ইনফ্রেন্স আসবে। ইতিপূর্বেকার যে সরকার ছিল তারা ক্ষমতায় এসেই ভারতের ইনফ্রেস অনেক বেশি নিয়েছিল বলে পাকিস্তান এখন চাইবেই তাদের সাথে ইনফ্রেস বাড়াতে। এখন দেখার বিষয় যে, তালেবানদের বিশ্ব কিভাবে স্বীকৃতি দেয় কিংবা তারা কিভাবে আদায় করে নেয়। 

সর্বশেষ - বিদেশে চাকুরি